Homeরাজ্যউঃ ২৪ পরগনাহাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে রাজ্য, অবরোধ-অনশনে কামদুনি

হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে রাজ্য, অবরোধ-অনশনে কামদুনি

প্রকাশিত

কলকাতা: শুক্রবার কামদুনি ধর্ষণ এবং হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত দু’জনের সাজা পরিবর্তন করে আমৃত্যু কারাদণ্ড ঘোষণা করেছেন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী এবং বিচারপতি অজয়কুমার গুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ। এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে রাজ্য সরকার। জানা গিয়েছে, স্পেশাল লিভ পিটিশন ফাইল করা হচ্ছে। পরিবারের সঙ্গে কথা বলেই সর্বোচ্চ আদালতে যেতে চায় রাজ্য।

২০১৩ সালে উত্তর ২৪ পরগনার কামদুনিতে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ করে নৃশংসভাবে খুন করা হয়। সেই ঘটনার তদন্তভার নেয় সিআইডি। নিম্ন আদালত ৬ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে। তিনজনের ফাঁসির সাজাও দেয়। বাকি তিনজনেরও শাস্তি হয়। তবে এরপর মামলা যায় হাইকোর্টে।

শুক্রবার হাইকোর্টে রায়দান হয় এই মামলার। আদালত এক ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত-সহ আরও একজনকে বেকসুর খালাস করে দেয়। বাকি দুই ফাঁসির সাজাপ্রাপ্তের আমৃত্যু কারাদণ্ড হয়। অন্য দু’জন খালাস হয় ১০ হাজার টাকা জরিমানার বদলে। এই রায়ে হতাশ নির্যাতিতার পরিবার, কামদুনি।

ঘটনায় প্রকাশ, হাইকোর্টে কামদুনি-রায় ঘোষণা হতেই হতাশ নির্যাতিতার পরিবার। খুশি নয় কামদুনির মানুষ। হতাশায় ভেঙে পড়েন কামদুনির সুবিচার চেয়ে আন্দোলনকারী মৌসুমী কয়াল এবং টুম্পা কয়ালরা। বিচারপতিদের এজলাসে যাওয়ার পথে রাস্তাতেই বসে পড়ে কান্নাকাটি শুরু করেন তাঁরা। কাঁদতে কাঁদতে অজ্ঞানও হয়ে যান মৌসুমী!

পরিবারের তরফে তখনই জানিয়ে দেন, হাই কোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যাবেন। রায় মেনে নেয়নি রাজ্য সরকারও। এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। রাজ্যের হয়ে গোটা বিষয়টি দেখছে সিআইডি। ডিআইজি স্তরের এক অফিসারের অধীনে একটি বিশেষ দল তৈরি করা হয়েছে। সেই দলের দুই আধিকারিক শুক্রবারই মৌসুমীর বাড়িতে এসে দেখা করেন তাঁর সঙ্গে। ১১টার কিছু আগে সিআইডির একটি দল কামদুনিতে ঢোকে। ২০ মিনিট ছিল সেখানে। সেখানে ছিলেন নির্যাতিতার বাবা ও মা।

তবে, রাজ্যের সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার সিদ্ধান্তে অনাস্থা প্রকাশ করেছেন নির্যাতিতার ভাই। তিনি বলেন, “রাজ্য সরকার সুপ্রিম কোর্টে গিয়ে কী করবে? সিআইডি তো চার্জশিট সাজিয়েছে ১ জনের বিরুদ্ধে। ২০১৫ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত আমি মুখ্যমন্ত্রীকে তিন বার চিঠি দিয়েছি। চিঠিতে লিখেছি, কোনও সরকারি আইনজীবী এই মামলা লড়তে চাইছেন না। আপনি হস্তক্ষেপ করুন। কোনও চিঠির আজ পর্যন্ত জবাব পাইনি। এই রায়ের পর কামদুনি সুবিচারের দাবিতে ফের পথে নামবে। ফের অবরোধ হবে, বিক্ষোভ দেখবে রাজ্য।”

আরও পড়ুন: হাইকোর্টে কামদুনি রায়: ফাঁসিতে দণ্ডিত দু’জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড, অন্যজন বেকসুর খালাস, অন্য তিন দণ্ডিতও খালাস   

সাম্প্রতিকতম

স্থুলতায় সন্তানধারণে কী প্রভাব পড়ছে, কী তথ্য উঠে এল গবেষণায়

সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় দেখা গেছে, স্থুলতা বা অতিরিক্ত ওজনের কারণে মস্তিষ্কের হাইপোথ্যালামাস অংশ শুক্রাণুর...

খরচ বেড়েছে মোবাইলের, স্মার্টফোনের ডেটা ব্যবহার কীভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখবেন

ভারতের প্রায় সমস্ত টেলিকম অপারেটরই প্রিপেড ও পোস্টপেড মোবাইল কানেকশনের দাম ১৫% পর্যন্ত বাড়িয়েছে।...

২০২৪ সালের নিট-ইউজি পরীক্ষা বাতিলের আবেদন খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

সুপ্রিম কোর্ট ২০২৪ সালের নিট-ইউজি পরীক্ষা বাতিলের আবেদন খারিজ করেছে। প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানিয়েছে, পরীক্ষায় সামগ্রিক পদ্ধতিগত লঙ্ঘনের প্রমাণ নেই। তবে কিছু অনিয়ম ঘটেছে মেনে নিয়েছে শীর্ষ আদালত।

দুর্গাপুজো কমিটিগুলির জন্য সরকারি অনুদান বৃদ্ধি, বিদ্যুৎ বিলে বাড়ছে ছাড়ও, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গাপুজো কমিটিগুলির জন্য অনুদান বাড়ানোর ঘোষণা করেছেন। চলতি বছর ৪৩ হাজার ক্লাবকে ৮৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে, যা ২০২৫ সালে এক লক্ষ টাকায় পৌঁছাবে। বিদ্যুৎ বিলে ৭৫ শতাংশ ছাড়ের কথাও ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন

দলেরই প্রভাবশালী লোকের জামিনের ব্যবস্থা করে দিতে হুমকি-ফোন সৌগত রায়কে  

কলকাতা: ফোনে খুনের হুমকি পেলেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। দলেরই প্রভাবশালী সদস্য ধৃত জয়ন্ত...

পিছিয়ে নেই ওরাও, রক্তদান শিবিরে এসে রক্ত দিলেন চার দৃষ্টিহীন যুবক 

রক্তদান শিবিরে এসে রক্ত দিলেন চার দৃষ্টিহীন যুবক। রবিবার বনহুগলী যুবক সংঘের ১৪তম রক্তদান উৎসবের সূচনা হয়। সূচনা লগ্নেই তাঁরা এগিয়ে এসে রক্তদান করেন।

ছোঁয়াচে হয়েছে গণপিটুনি, বৌবাজারের পর এবার সল্টলেকে মোবাইল চোর সন্দেহে পিটিয়ে খুন, ধৃত ৩

শনিবার সকালে প্রসেন মণ্ডলকে গুরুতর জখম অবস্থায় সল্টলেকের করুণাময়ী এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
ইন্টারভিউয়ে কীরকম শরীরী ভঙ্গিমা থাকা উচিত বাড়তি মেদ ঝরানোর নয়া ট্রেন্ড ‘ওয়াটার ফাস্টিং’ কী?