Homeখেলাধুলোক্রিকেটটি২০ সিরিজ: যশস্বী, ঈশান, ঋতুরাজ, রিঙ্কুর ব্যাটিং এবং বিশনয় ও প্রসিধের বোলিং-এর...

টি২০ সিরিজ: যশস্বী, ঈশান, ঋতুরাজ, রিঙ্কুর ব্যাটিং এবং বিশনয় ও প্রসিধের বোলিং-এর দৌলতে ভারত ২-০

প্রকাশিত

ভারত: ২৩৫-৪ (ঋতুরাজ গায়কোয়াড় ৫৮, যশস্বী জয়সোয়াল ৫৩, নাথান এলিস ৩-৩৫)

অস্ট্রেলিয়া: ১৯১-৯ (মার্কাস স্টয়নিস ৪৫, ম্যাথু ওয়েড ৪২, রবি বিশনয় ৩-৩২, প্রসিধ কৃষ্ণ ৩-৪১)  

তিরুঅনন্তপুরম: রানের ঝড় তুলেছিল ভারত। শেষ ৭ ওভারে ১১১ রান। ওভারপ্রতি প্রায় ১৬ রান। ভারত ২০ ওভারে করল ৪ উইকেটে ২৩৫ রান। টি২০ ম্যাচে এক ইনিংসে পঞ্চম সর্বোচ্চ রান। আর এর পিছনে রয়েছে ভারতের প্রথম তিন ব্যাটার যশস্বী জয়সোয়াল, ঋতুরাজ গায়কোয়াড় আর ঈশান কিষানের অর্ধশত রান এবং রিঙ্কু সিংয়ের মারাকাটারি ব্যাটিং।

এর জবাবে ৯ উইকেটে ১৯১ রান করে থেমে যায় অস্ট্রেলিয়া। ইনিংসের শুরুতেই দ্রুত ৪টি উইকেট পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার। পঞ্চম উইকেটে মার্কাস স্টয়নিস এবং টিম ডেভিড পরিস্থিতি কিছূটা সামাল দিলেও ডেভিড আউট হতেই আবার ধস। মূলত রবি বিশনয় আর প্রসিধ কৃষ্ণ বেশি বাড়তে দেননি অস্ট্রেলিয়াকে। শেষ পর্যন্ত ভারত জিতে যায় ৪৪ রানে। ৫ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ফলে এগিয়ে গেল ভারত।

ভারতের ইনিংসে শেষ ১৪ বলে ৪৬ রান

রবিবার তিরুঅনন্তপুরমের গ্রিনল্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে টসে জিতে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠায় অস্ট্রেলিয়া। এই সুযোগের পূর্ণ সদ্ব্যবহার করে ভারত। যশস্বী জয়সোয়াল আর ঋতুরাজ গায়কোয়াড় ইনিংস ওপেন করতে নেমে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের মাথায় তুলতে দেননি। রানের ঝড় তোলেন তাঁরা। প্রথম উইকেটের জুটিতে ৫.৫ ওভারে তাঁরা তোলেন ৭৭ রান। দু’জনের মধ্যে বেশি মারমুখী ছিলেন যশস্বী। প্রথম উইকেটের জুটিতে ৭৭ রানের মধ্যে তিনি একাই তোলেন ৫৩ রান। শেষ পর্যন্ত নাথান এলিসের বলে অ্যাডাম জাম্পাকে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান তিনি।

ঋতুরাজের সঙ্গী হন ঈশান কিষান। রান ওঠার গতি একটু কমে। ঈশান আর ঋতুরাজ দ্বিতীয় উইকেটের জুটিতে তোলেন ৮৭ রান। এই রান ওঠে ৯.৩ ওভারে। দলের ১৬৪ রানের মাথায় আউট হন ঈশান, শিকার হন মার্কাস স্টয়নিসের। এই আউটেও অবশ্য নাথানের ভূমিকা ছিল। তিনি ঈশানের ক্যাচ ধরেন। ৩২ বলে ৫২ রান করেন ঈশান।

অধিনায়ক সূর্যকুমার যাদব জুটি বাঁধেন ঋতুরাজের সঙ্গে। ১০ বলে ১৯ রান করে সেই নাথান ইলিসকে উইকেট দিয়ে বিদায় নেন সূর্যকুমার। স্টয়নিস আর নাথানের ভূমিকা এবার পালটাপালটি হয়ে যায়। নাথানের বলে সূর্যকুমারের ক্যাচ ধরেন স্টয়নিস।

সূর্যকুমার যখন আউট হন দলের রান তখন ১৮৯। ১৭.৪ ওভারে এই রান ওঠে। বাকি ছিল ১৪ বল। ঋতুরাজের সঙ্গী হন গত ম্যাচের জয়ের অন্যতম নায়ক রিঙ্কু সিং। রিঙ্কু মাঠে নেমে রানের ঝড় তুলেছিলেন বললে কম বলা হয়। ভারতের ইনিংসের শেষ ১৪ বলে ওঠে ৪৬ রান। তার মধ্যে একা রিঙ্কু তোলেন ৩১ রান, মাত্র ৯ বলে। এর মধ্যে ৪টি বাউন্ডারি এবং ২টি ওভারবাউন্ডারি ছিল।

ইতিমধ্যে দলের  ২২১ রানে সেই নাথানের বলে টিম ডেভিডকে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে চলে যান ঋতুরাজ গায়কোয়াড়। ঋতুরাজ করেন ৪৩ বলে ৫৮ রান। শেষ পর্যন্ত ভারত পৌঁছোয় ২৩৫ রানে। রিঙ্কু ৩১ রানে এবং তিলক বর্মা ৭ রানে (২ বলে) নট আউট থাকেন। অস্ট্রেলিয়ার একমাত্র সফল বোলার নাথান ইলিস। তিনি ৩৫ রান দিয়ে ৩ উইকেট দখল করেন।

প্রাথমিক বিপদ কাটিয়েও অস্ট্রেলীয় ইনিংসে ধস

জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৩৬ রান তুলতে গিয়ে শুরতেই বিপাকে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। মাত্র ৫৮ রানে তারা ৪টি উইকেট হারায়। একে একে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান ম্যাথু শর্ট (১০ বলে ১৯ রান), জোশ ইংলিস (৪ বলে ২ রান), গ্লেন ম্যাক্সওয়েল (৮ বলে ১২ রান) এবং স্টিভ স্মিথ (১৬ বলে ১৯ রান)। ২টি উইকেট তুলে নেন রবি বিশনয় এবং ১টি করে উইকেট পান প্রসিধ কৃষ্ণ এবং অক্ষর পটেল।

পরিস্থিতি সামাল দেন মার্কাস স্টয়নিস এবং টিম ডেভিড। রানের ওঠার গতিও বেশ বাড়ে। দলের ৪ উইকেটে ৫৮ রান উঠেছিল ৭.২ ওভারে। এর পরই ঝড় তোলেন স্টয়নিস এবং ডেভিড। অস্ট্রেলিয়ার পঞ্চম উইকেটের জুটিতে ৫০ রান আসে মাত্র ২১ বলে। অক্ষর পটেলকে ছয় মেরে টিম ডেভিড নিজেদের জুটিতে ৫০ পূর্ণ করেন।

দ্বাদশ ওভার করতে আসেন অর্শদীপ। প্রথম বলে ১ রান দিয়ে স্টয়নিসকে স্ট্রাইক দেন ডেভিড। স্টয়নিস ওভারের বাকি ৫ বলে তুলে নেন ১৭ রান। ১২ ওভারের শেষে অস্ট্রেলিয়া পৌঁছে যায় ১৩১ রানে। কিন্তু টিম ডেভিডের ইনিংস খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। দলের ১৩৯ রানে ২২ বলে ৩৭ রান করে রবি বিশনয়ের বলে ঋতুরাজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ডেভিড বিদায় নিতেই অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসে ধস নামে। মাত্র ১৬ রানের মধ্যে তাদের ৪টে ইনিংস পড়ে যায়।

শেষ পর্যন্ত দশম উইকেটের জুটিতে ৩৬ রান যোগ হয় প্রধানত ম্যাথু ওয়েডের ব্যাটিং-এর সুবাদে। অস্ট্রেলিয়া ২০ ওভারে করে ৯ উইকেটে ১৯১ রান। ম্যাথু ওয়েড ২৩ বলে ৪২ করে এবং তনবীর সংঘ ৪ বলে ২ রান করে নট আউট থাকেন। ভারত জিতে যায় ৪৪ রানে। ভারতের হয়ে ৩টি করে উইকেট নেন রবি বিশনয় এবং প্রসিধ কৃষ্ণ। ‘প্লেয়ার অভ দ্য ম্যাচ’ হন যশস্বী জয়সোয়াল।

আরও পড়ুন

টি২০ সিরিজ: রুদ্ধশ্বাস শেষ ওভার, শেষ বলে রিঙ্কু জয় এনে দিলেন ভারতের

সাম্প্রতিকতম

লোকসভা ভোটে বাংলার ২০টি আসনের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির

কলকাতা: তৃণমূলকে কঠিন চ্যালেঞ্জ দেওয়ার লক্ষ্যে, বাংলার ৪২টি লোকসভা আসনের মধ্যে ২০টিতে প্রার্থীর নাম...

উত্তর কলকাতার প্রার্থী হিসাবে সুদীপকে চাইছেন না কুণাল, জানিয়ে দিলেন পছন্দের নাম

কলকাতা: বৃহস্পতিবার রাতে এক্স-এ বিস্ফোরক পোস্ট। শুক্রবার দলের দুই গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে অব্য়াহতি চেয়ে...

টিকিট পাওয়ার সম্ভাবনা নেই! রাজনীতি ছাড়তে চেয়ে নড্ডাকে অনুরোধ গৌতম গম্ভীরের

নয়াদিল্লি: সক্রিয় রাজনীতি থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করছেন বিজেপি সাংসদ এবং প্রাক্তন ভারতীয়...

তৃণমূল কংগ্রেসের দুই পদ থেকে ইস্তফা কুণাল ঘোষের 

কলকাতা: তৃণমূলের মুখপাত্র, রাজ্য সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছেন না কুণাল ঘোষ। শুক্রবার দিনভর জল্পনার...

আরও পড়ুন

গিল-জুরেল জুটির দৌলতে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ জিতে নিল ভারত   

ইংল্যান্ড: ৩৫৩ (জো রুট ১২২ নট আউট, ওলি রবিনসন ৫৮, রবীন্দ্র জাদেজা ৪-৬৭, আকাশ...

অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট: পেসারদের কাছে হার মানল ভারত, চ্যাম্পিয়ন হল অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়া: ২৫৩-৭ (হরজস সিং ৫৫, হিউ ওয়েবগেন ৪৮, রাজ লিমবানি ৩-৩৮, নমন তিওয়ারি ২-৬৩)...

অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট: সচিন ধস আর উদয় সহরনের জুটি ভারতকে পৌঁছে দিল ফাইনালে     

দক্ষিণ আফ্রিকা: ২৪৪-৭ (প্রেতোরিয়াস ৭৬, সেলেতসোয়ানে ৬৪, লিমবানি ৩-৬০, মুশির ২-৪৩) ভারত: ২৪৮-৮ (সচিন ধস...